প্রথম স্বাক্ষাতে কুশল বিনিময় করুন।
পৃথিবীর শুরু থেকেই প্রথাটা পৃথিবীতে প্রচলিত যে দুই জন পরিচিত মানুষ দেখা হলো আর কিছু না বলে দুই জন দুই জন কে অতিক্রম করা অভদ্রতা তাই দুই জনের দেখা হলে কিছু না কিছু বলা এটাই হলো ভদ্রতা। তাই যেটাকে আমরা বলি কুসল বিনিময়। একটু দু জন দুই জনের খোজ খবর নেয়া। মানুষের আপন হতে গেলে এই অভ্যাস টা গড়ে তুলুন। দেখা হওয়া মাত্রই আগেই হাসি মুখে তার সাথে কুশল বিনিময় করুন।

চোখে চোখ রেখে কথা বলুন।
কাওকে আপন করে নিতে অবশ্যই আপনার দিকে মনযোগ আকর্ষন করাতে হবে। তার মনোযোগ আকর্ষন করার জন্য তার চোখের দিকে চোখ রেখে কথা বলুন। তাহলে সে আপনার কথা গুলো শুনছে কিনা তা বুঝতে পারবেন। এবং তিনি বিরক্ত হচ্ছেন কিনা খুশি হচ্ছেন তাও আপনি বুঝতে পারবেন। সুতরাং চোখে চোখ রেখে কথা না বললে যাকে বলছেন তিনি ভালো শ্রতা হয়ে ওঠে না। যার ফলে ভালো সম্পর্ক ও গড়ে ওঠে না।
ভালো শ্রোতা হন।
প্রিয় মানূষ হতে হলে ভালো শ্রতা হওয়া অত্যন্ত জরুরি। আপনি যদি একজন ভালো শ্রতা হতে পারেন এবং তার কথার সাথে নিজেকে সুন্দর ভাবে জুড়ে দিতে পারেন তাহলে খুব সহজেই আপনি তার মনে স্থান নিতে পারবেন। কারন যখনই আপনি অন্যের কথা গুলো খুব মনযোগ সহকারে শুনবেন দুঃখের কথায় সমবেদনা জানাবেন এবং শুখের কথায় খুশি হবেন হাশির কথায় হাসবেন তখন আপনাকে একজন প্রিয় মানূষ ভাবতে শুরু করবে। তার অনেক হৃদয়ের কথা অকপটে বলতে থাকবে। যা একজন মানুষের আপন হওয়ার ক্ষেত্রে অত্যন্ত জরুরি।

কথার যথাযথ উত্তর দিন চটজলদি।কেও আপনাকে প্রশ্ন করলে বা কথা বলার সময় কোন প্রশ্নের উত্তর দেরিতে দেয়ার অর্থ হলো প্রশ্ন কর্তাকে অবজ্ঞা করা যা ভালো সম্পর্কের অন্তরায়। তাই কাওকে আপন করার জন্য প্রথম দরকার তার কথার যথাযত উত্তর দেয়া খুব তাড়াতাড়ি যার ফলে প্রশ্ন কর্তা বুঝবেন যে আপনি তাকে যথেষ্ঠ মুল্যায়ন করছেন তার কথা মনযোগ দিয়ে শুনেন তাকে যথেষ্ঠ সম্মান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *